বন অধিদপ্তর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৮ এপ্রিল ২০১৫

সুন্দরবনে কার্বন জরিপ

 

 

২০০৯-২০১০ ইং সনে IPAC প্রকল্পের আওতায় সুন্দরবনের (Sundarban Reserved Forest) কার্বনের পরিমান নির্ণয় (Carbon Inventory) করা হয়। সুন্দরবনের কার্বনের পরিমান নির্নয়ের জন্য ১৫০ (একশত পঞ্চাশ) টি কার্বন ইনভেন্টরি প্লট চিহ্নিত করে ম্যাপ তৈরী করা হয় এবং বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা কর্মচারীদের কার্বনের হিসাব নিরূপন সংক্রান্ত প্রশিক্ষন প্রদান করা হয়। কার্বনের পরিমান নির্নয়ের ক্ষেত্রে বিভিন্ন স্তরে ৫টি কার্বন-পুল বিবেচনায় আনা হয়। এগুলো হলোঃ


১) ক. Trees above ground (ভূমির উপরের গাছসমূহে যেমনঃ পুরো গাছ)
খ. Trees below ground (ভূ-নিম্নস্থ গাছের অংশ সমূহ, যেমনঃ root system)
২) Seedling & Sapling (ছোট ও অপেক্ষাকৃত বড় চারাসমূহ)
৩) Non-tree vegetation
৪) Down wood (পতিত কাঠ) এবং
৫) Soil (০ থেকে ১০০ সেমি পর্যন্ত গভীরতার মাটির অংশ)।


ভূমির উপরিস্থ (above ground) এবং ভূমির নিম্নস্থ (below ground) কার্বন পুল স্থানীয় এবং আন্তর্জাতিক উভয় প্রকার allometric equation এবং প্রজাতি ভিত্তিক বিভিনড়ব কাঠের ঘনত্বের সারনী (wood density table) ব্যবহার করে কার্বনের পরিমান নির্ণয় করা হয়। মাটিতে মজুদ কার্বনের পরিমান নির্নয়ের ক্ষেত্রে কার্বন ঘনত্ব (Carbon density), মাটির বাল্ক ডেনসিটি ও মাটির গভীরতার বিস্তৃত (soil depth range) বিবেচনা করা হয়। 

 

নীচের টেবিল এ সুন্দরবনে প্রাপ্ত কার্বন এর পরিমাণ উল্লেখ করা হলো

 

গড় কার্বন ঘনত্ব

(মেগাগ্রাম / হেক্টর)

সুন্দরবনের ভূমির পরিমান
(হেক্টর)

সুন্দরবনে মোট
কার্বন মজুদ (মেগাটন)

সমপরিমান কার্বন ডাইঅক্সাইড
(মেগাটন)

২৫৬.৬ (+-১৭)

 ৪১১,৬৩৯

১০৫.৬

৩৮৭.৭

 

 

 

 

 

 

 

 


Share with :