বন অধিদপ্তর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১১ অক্টোবর ২০১৭

ফরেস্ট্রি সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি ইনস্টিটিউট, চট্টগ্রাম

 

 

পরিচিতি ঃ

বন কর্মী বর্হিভুত ছাত্রদেরকে বন, পরিবেশ, বন্যপ্রাণী ও জীব বৈচিত্র্য, বন ব্যবহার, সাামাজিক বনায়ন, জলবায়ু পরির্বতন বিষয়ে শিক্ষা সম্প্রসারণ করার জন্য চট্টগ্রামস্থ ফরেস্ট্রি সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠা করা হয়। এখানে ৪ বৎসর মেয়াদী ডিপ্লোমা-ইন-ফরেস্ট্রিতে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি করা হয়। বর্তমানে অত্র ইনস্টিটিউটে ১২ জন ছাত্রী অধ্যয়ন করছে। তাদেরকে যথাযথ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বন ও পরিবেশ সম্পর্কিত জ্ঞানে পারদর্শী করা হয়। প্রশিক্ষণ শেষে বন বিদ্যায় ডিপ্লোমাধারী এসব ছাত্ররাই প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার মাধ্যমে ফরেস্টার হিসাবে যোগদান করতে পারেন এবং মূলতঃ মাঠ পর্যায়ে বন রক্ষণাবেক্ষণ কাজ করে থাকে। বাংলাদেশে বর্তমানে ১০ হাজার ডিপ্লোমা-ইন-ফরেস্ট্রি জ্ঞান লব্ধ মানব সম্পদের প্রয়োজন। সে হিসাবে এ ইনস্টিটিউট বন উন্নয়ন ও সংরক্ষণের ক্ষেত্রে এক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। দেশের পরিবেশ সংরক্ষণ, বন উন্নয়ন ও সম্প্রসারণের লক্ষ্যে বিষয়টির উপর গুরুত্ব দিয়ে ফরেস্ট্রি সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি ইনস্টিটিউট, চট্টগ্রামের বিদ্যমান সমস্যাদি সমাধান করে যুগপোযোগী শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করা আশু প্রয়োজন।

 

                                                           কম্পিউটার ল্যাবে প্রশিক্ষণরত ছাত্রবৃন্দ                                                            মাঠে ইনভেন্টরীর ব্যবহারিক ক্লাশ

 

ফরেস্টি সায়েন্স এন্ড  টেকনোলজি ইনস্টিটিউট, চট্টগ্রাম ১৯৯৪ সনে প্রতিষ্টিত হয়। চট্টগ্রাম মহানগরীর পূর্ব নাছিরাবাদ শিল্প এলাকায় ফরেস্ট একাডেমী, চট্টগ্রাম এর পার্শ্বে পাহাড়ী ভূমিতে ইহা প্রতিষ্ঠিত। প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের আওতাধীন এবং বন অধিদপ্তর কর্তৃক পরিচালিত হয়। ইহা একটি সম্পূর্ণ আবাসিক প্রতিষ্ঠান। এখানে ৪ বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা-ইন-ফরেস্ট্রি কোর্স চালু আছে। প্রতি বছর ৫০ জন ছাত্র ভর্তি করা হয়। পূর্বে এ প্রতিষ্ঠানটি ফরেস্ট স্কুল, চট্টগ্রাম নামে পরিচিত ছিল। পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের পত্র নং পবম/বন-শাখা-৩/বন-২৭/০৫/৩৫৫ তাং-০৬/০৫/০৯ইং মূলে উক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির নাম পরিবর্তন করে ‘‘ফরেস্ট্রি সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি ইনস্টিটিউট, চট্টগ্রাম” করা হয়েছে।

 

৪ বৎসর মেয়াদী ডিপ্লোমা ইন ফরেস্ট্রি ছাত্র ভর্তি প্রক্রিয়া ঃ

ফরেস্ট্রি সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি ইনস্টিটিউট, চট্টগ্রামে ছাত্র ভর্তির আসন সংখ্যা ৫০ জন। ডিপ্লোমা ইন ফরেস্ট্রি কোর্সে ছাত্র ভর্তির  প্রাথমিক কার্যক্রম বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক সম্পন্ন করা হয়। এক্ষেত্রে বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক এসএসসি বা সমমান পরীক্ষার রেজাল্ট প্রকাশ হওয়ার পর বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় ভর্তির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে এবং তাদের ওয়েবসাইটে (িি.িনঃবন.মড়া.নফ) দেয়া হয়। বিগত ০৩ বছরে যে সকল ছাত্র-ছাত্রী এসএসসি /দাখিল/এসএসসি(ভোক) /সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ  এবং সাধারণ গণিত বা উচ্চতর গণিতে জিপিএ ৩.০০ সহ কমপক্ষে জিপিএ ৩.৫০ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা ভর্তির জন্য অন লাইনে আবেদন করতে পারে। অন লাইনে আবেদন করার পর বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড মেধা ভিত্তিক তালিকা (জিপিএ এর ভিত্তিতে) তাদের ওয়েব সাইটে প্রকাশ করে। এক্ষেত্রে ভর্তির জন্য কোন পরীক্ষা গ্রহণ করা হয় না। মেধা তালিকা ভিত্তিতে নির্ধারিত সময় সীমার মধ্যে ভর্তি ফি ও প্রয়োজনীয় অন্যান্য কাগজ-পত্রসহ  ফরেস্ট্রি সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি ইনস্টিটিউট, চট্টগ্রাম কর্তৃক ভর্তির চূড়ান্ত প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়।

 

 

                             

          মাঠে সার্ভে ব্যবহারিক ক্লাশে অনুশীলনরত ছাত্রবৃন্দ                                         ডিপ্লোমা ইন ফরেষ্ট্রী কোর্সের ক্লাসে পাঠদান

 

কর্মকান্ড ঃ

১৯৯৪-৯৫ শিক্ষাবর্ষে এখানে প্রথম ৩ বৎসর মেয়াদী ডিপ্লোমা-ইন-ফরেস্ট্রি কোর্সে ছাত্র ভর্তি করা হয় এবং এ পর্যন্ত ১৭টি ব্যাচে মোট ৫৫৮ জন ছাত্রকে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে। বর্তমানে ২টি ব্যাচে মোট ৫১ জন ছাত্র অধ্যয়নরত আছে। বর্তমানে উক্ত কোর্সটি ৪ বৎসর মেয়াদী ডিপ্লোমা-ইন-ফরেস্ট্রি কোর্সে উন্নিত হওয়ার পর ২০১৪ ইং সাল ৪ বৎসর মেয়াদী ডিপ্লোমা-ইন-ফরেস্ট্রি কোর্সে মোট ৪৮ জন ছাত্র ভর্তি হয়েছে।

 

 


Share with :