বন অধিদপ্তর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১১ অক্টোবর ২০১৭

উইং সম্পর্কে

 

শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ উইং

বন অধিদপ্তর

 

বন অধিদপ্তরের শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ উইং প্রধান বন সংরক্ষক, বাংলাদেশ বন বিভাগ এর তত্ত্বাবধানে একজন উপ প্রধান বন সংরক্ষক দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। একজন উপ বন সংরক্ষক উপ প্রধান বন সংরক্ষককে তার কাজে সহযোগিতা প্রদান করে থাকেন। শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ উইং বন অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের দেশে ও বিদেশে শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে। ইহাছাড়া অত্র উইং বিভিন্ন বিষয়ে বিভিন্ন সভা, সেমিনার ও ওয়ার্কশপ আয়োজন করে থাকেন। অত্র উইং দেশের অভ্যন্তরে বন কর্মীদের জ্ঞান, দক্ষতা বৃদ্ধি ও মনোভাব পরিবর্তনকল্পে বিভিন্ন প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করে। বিভিন্ন প্রশিক্ষণ ইনষ্টিটিউটের চাহিদা মোতাবেক বন অধিদপ্তরের কর্মচারীদেরকে প্রশিক্ষণের জন্য সংশ্লিষ্ট ইনষ্টিটিউটে প্রেরণ ও বিভিন্ন সরকারী ও বেসরকারী সংস্থার সাথে সমন্বয় সাধন করে। গত ৫ বৎসর ৩০০ জন কর্মকর্তাকে প্রশিক্ষণের জন্য মনোনয়ন প্রদান করা হয়েছে। বিদেশ হতে প্রত্যাবর্তনের পর কর্মকর্তাগণ লব্ধ জ্ঞান বিতরণের জন্য রিপোর্ট দাখিল ও বিষয় ভিত্তিক উপস্থাপনা প্রদান করে থাকেন। দাখিলকৃত রিপোর্ট পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয় এবং বিভিন্ন সেমিনার ও সিম্পোজিয়াম আয়োজনের  মাধ্যমে সাপ্্রতিক বিষয় সম্পর্কে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদেরকে অবহিত করেন।

 

বন অধিদপ্তরের ৫টি প্রশিক্ষণ ইনষ্টিটিউটকে শক্তিশালী করণের জন্য ইতিপূর্বে ২টি প্রকল্প (জলবায়ু ট্রাষ্টের অধীনে প্রকল্প ও রাজস্ব বাজেটের অধীনে প্রকল্প) পেশ করা হয় । জলবায়ু ট্রাষ্ট ফান্ডের অধীনে প্রস্তাবিত প্র্রকল্প অনুমোদন হয়নি । রাজস্ব বাজেটের অধীনে প্রণীত (প্রকল্পটির ব্যয় ২১.৪৯ কোটি টাকা প্রকল্পটির সময়কাল-২০১৬ - ১৮) প্রকল্পটি অনুমোদিত হয়েছে এবং কার্যক্রম বর্তমানে চলমান আছে।

 

প্রতিটি ইনস্টিটিউটে বর্তমানে কম্পিউটার র্কোস প্রর্বতন এবং কম্পিউটার ল্যাব চালু করা হয়েছে। ফরেস্ট্রি সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি ইনষ্টিটিউট, সিলেট ও রাজশাহীতে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা চালু করা হয়েছে যা প্রশিক্ষণের একটি অবিচ্ছেদ্দ্য অংশ হিসেবে বিবেচিত। বার্ষিক ক্রীড়া অনুষ্ঠানের মাধ্যমে প্রশিক্ষণার্থীদের কর্ম দক্ষতা, মন- মানসিকতা উন্নয়ন সাধন করে। এছাড়া সকল ইনষ্টিটিউটের প্রশিক্ষণার্থীদের জাতীয় দিবসসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজনের মাধ্যমে তাদের দেশ-প্রেম ও সামজিক মূল্যবোধের বিকাশ ঘটানো হয়। ফরেষ্টারদের প্রশিক্ষণ শেষে কেন্দ্রীয় পর্যায়ে কৃতকার্য ফরেষ্টারদেরকে মেডেল এবং সার্টিফিকেট প্রদানের একটি বিধান পূর্বে ছিল। প্রয়োজনীয় বাজেট না থাকায় তা প্রদান করা সম্ভব হয় না। ফরেস্ট্রি ডিপ্লোমা (ইন সার্ভিস) কোর্সের রাইফেল ট্রেনিং বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমী, সারদা, রাজশাহীতে এবং অন্যান্য পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারে প্রদান করা হয়। চাকুরীরত ফরেষ্টারদের ডিপ্লোমা কোর্স  ২ বছর (ইন সার্ভিস) আর বনকর্মী বর্হিভূত ছাত্রদের জন্য উন্মুক্ত ডিল্পোমা কোর্সের মেয়াদ ৪ বছর করা হয়েছে যা বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড, ঢাকা নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। 


Share with :