বন অধিদপ্তর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১

বৃক্ষ ও বন জরিপ, বাংলাদেশ

 

বন জরিপ ও পরিবীক্ষণ (Forest Survey and Monitoring)

 

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের আর্থিক এবং জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষিসংস্থার কারিগরি সহায়তায় বন অধিদপ্তর কর্তৃক প্রকল্পটি ২০১৫-২০১৯ সময়কালে বাস্তবায়ন করা হয় । পূর্বে পরিচালিত বন  জরিপের সকল নকশা এবং মূল বন খাতের  অংশীজনদের সাথে পর্যালোচনা করে এ বারের বৃক্ষ ও বন এবং আর্থসামাজিক জরিপ পরিচালনা হয়েছে। দেশব্যাপী বৃক্ষ ও বন জরিপ পরিচালনা করার জন্য পাঁচটি জোন বিবেচনায় নেয়া হয়েছে, যা শাল, পাহাড়ী, সুন্দরবন, উপকূলীয় এবং গ্রামীন জোনের মাধ্যমে দেখানো হয়েছে। সকল জোনের বৃক্ষ ও বন জরিপের কাজ সম্পন্ন হয়েছে।

 

Bangladesh Forest Inventory (BFI)

 

বাংলাদেশ বন অধিদপ্তর কর্তৃক বাস্তবায়িত ”Strengthening National forest Inventory and Satellite Land Monitoring System in support of REDD+ in Bangladesh”  প্রকল্পটি ২০১৯ সালে সমাপ্ত হয়েছে। USAID এর আর্থিক সহযোগীতায় ও FAO এর কারিগরি সহযোগীতায় প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হয়েছে।

 

প্রাপ্ত ফলাফল:

  • ১৮৯৮ টি নমুনা প্লটের  মধ্যে ৩৯০ টি বৃক্ষ প্রজাতির সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। তন্মধ্যে  ৯% introduced/exotic species.
  • সারা দেশের বন ও বনের বাইরে বৃক্ষ সম্পদের National growing stock- ৩৮৪মিলিয়ন ঘন মিটার;
  • National growing stock এর ৬৬% বন এলাকার বাইরে অবস্থিত বৃক্ষ সম্পদ থেকে;
  • বৃক্ষের মাটির উপরের অংশে জমাকৃত Biomass এর পরিমান ৩৮৭ মিলিয়ন টন;
  • প্রধান তিনটি Biomass উৎপাদন কারী বৃক্ষ প্রজাতি- ১। আম ২। সুন্দরি ৩। মেহগনি
  • দেশের মাটির উপরের বৃক্ষ সম্পদ, মাটির নিচের বৃক্ষ সম্পদ এবং মাটির মধ্যে (৩০ সেন্টিমিটার গভিরতা পর্যন্ত) সঞ্চিত কার্বনের পরিমান ১২৭৬ মিলিয়ন টন।
  • ১২৭৬ মিলিয়ন টন কার্বনের প্রায় ২২% বনাঞ্চলের মধ্যে, বাকিটা বন এলাকার বাইরে অবস্থিত;
  • ১২৭৬ মিলিয়ন টন কার্বনের প্রায় ১০% পাহাড়ি বনে এবং প্রায় ৫.৫% সুন্দরবনে অবস্থিত;
  • দেশের বৃক্ষ সম্পদ Gross National Income (GNI) এর ১.২৯ % অবদান রাখছে;
  • সংগৃহীত বৃক্ষ সম্পদ এর অর্থনৈতিক মুল্য ২০১৭-১৮ সালের Gross Domestic Product (GDP) এর ৩.১১%;
  • জরিপে তথ্য প্রদান কারী পরিবার সমুহ কমপক্ষে একটি উপকার বৃক্ষ সম্পদ থেকে পেয়েছে;
  • বৃক্ষ ও বনজ সম্পদ সামগ্রী সংগ্রহকারীদের প্রায় ৬৫% মহিলা;
  • ৫৪% পরিবার বৃক্ষ ও বন থেকে ঔষধি উপকার পেয়েছে;
  • সুন্দরবনের পাশে অবস্থানকারী পরিবার সমুহ অন্যান্য এলাকা থেকে অধিক আয় করে যার অর্ধেকের ও বেশি আসে মাছ ও কাঁকড়া থেকে।

 

 

বাংলাদেশ বনজসম্পদ সমীক্ষা (BFI) প্রতিবেদন

 

 

 

 

 

 



Share with :

Facebook Facebook