বন অধিদপ্তর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১০ অক্টোবর ২০১৭

সামাজিক বনায়নে অর্জিত সাফল্য

 

 

বাংলাদেশে সামাজিক বনায়ন গ্রামীণ জনপদে আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ও দারিদ্র-বিমোচনে এক নতুন দিগন্তের সূচনা করেছে। সেই সাথে সামাজিক বনায়ন পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা, জলবায়ু পরিবর্তন উপশম ও অভিযোজন এবং জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। বন বিভাগ ১৯৬০ দশকের শুরুর দিকে বন সমপ্রসারণ কার্যক্রমের মাধ্যমে সর্বপ্রথম বনায়ন কর্মসূচি বনাঞ্চলের বাইরে জনগণের কাছে নিয়ে যায়। অতঃপর ১৯৮১-৮২ সাল হতে উত্তরবঙ্গের সরকারী বনভূমিতে বনায়নের জন্য বৃহত্তর ৭টি জেলায় কমিউনিটি ফরেষ্ট্রী প্রকল্পের মাধ্যমে জনগণের অংশগ্রহণে অংশীদারিত্বমূলক সামাজিক বনায়নের প্রচলন করে। সরকার ২০০০ সালে সামাজিক বনায়ন কার্যক্রমকে ১৯২৭ সালের বন আইনে অন্তর্ভূক্তির মাধ্যমে আইনি কাঠামোতে নিয়ে আসে। সামাজিক বনায়নকে আরও শক্তিশালী করার জন্য সরকার ২০০৪ সালে সামাজিক বনায়ন বিধিমালা প্রবর্তন করে। যাহা আরো কার্যকর ও সুযোপযোগী করার লক্ষ্যে ২০১১ সাল পর্যন্ত সংশোধনী আনা হয়। সংশোধিত বিধিমালায় সরকারী বন ভূমিতে বনায়নের জন্য স্থানীয় জনগোষ্ঠীর বিনিয়োগের সুযোগ সৃষ্টি করা হয়েছে।

 

বন বিভাগ কর্তৃক বাস্তবায়িত সামাজিক বনায়ন কার্যক্রমের আওতায় শুরু হতে ২০১৫-১৬ পর্যন্ত প্রায় ৭৯,২৯৮হেক্টর উডলট বাগান, ১০,৬২৬ হেক্টর কৃষি বন বাগান, ৬৬,৪৭২ কিলোমিটার স্ট্রিপ বাগান সৃজন করা হয়েছে। এছাড়া বিগত ৪ বছরে জলবায়ু ট্রাস্ট ফান্ড আওতাভূক্ত প্রকল্পের মাধ্যমে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে দীর্ঘমেয়াদী, স্বল্পমেয়াদী ও নন-ম্যানগ্রোভ ২৯৫৫ হেক্টর ব্লক বনায়ন এবং সড়ক, রেলপথ ও বাঁধ সংযোগ সড়কে ২৬৪১ কি.মি. স্ট্রীপ বনায়ন করা হয়েছে। সৃজিত বাগানে প্রায় ৬ লক্ষ ২৭ হাজার উপকারভোগী সম্পৃক্ত আছে। ২০০২ সাল হতে ২০১৫-১৬ সাল পর্যন্ত সারাদেশে ব্যাপক বনায়নের লক্ষ্যে ১০ কোটি ১৫ লক্ষ ৪০ হাজার টি চারা বিক্রয় ও বিতরণ করা হয়েছে।

 

শুরু হতে ২০১৫-১৬ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশে সামাজিক বনায়নের আওতায় ১ কোটি ৯২ লক্ষ ৮০ হাজার ৪ শত ৬৯ ঘনফুট কাঠ, ২ কোটি ২ লক্ষ ৮১ হাজার ২৮ ঘনফুট জ্বালানী কাঠ ও ৫৫ লক্ষ ৫০ হাজার ২ শত ৯৫ টি বল্লী উৎপাদিত হয়েছে। উৎপাদিত কাঠ, জ্বালানী কাঠ ও বল্লী বিক্রয় করে ৭৭৫ কোটি ১৪ লক্ষ ১০ হাজার ৯ শত ৩৮ টাকা পাওয়া গেছে। ১ লক্ষ ৩৩ হাজার ৮০ জন  উপকারভোগীর মাঝে বিতরনকৃত লভ্যাংশের পরিমাণ ২৬১ কোটি ১৪ লক্ষ ৪৯ হাজার ১৩৭ টাকা। টিএফএফ হিসেবে প্রায় ৭৪ কোটি ৭৯ লক্ষ ৪ হাজার ৪ শত ৭৭ টাকা জমা হয়েছে। সামাজিক বনায়নের মাধ্যমে এ পর্যন্ত সরকারী রাজস্ব হয়েছে ২৮৬ কোটি ২৪ লক্ষ ১২ হাজার ২ শত ৩২ টাকা।

 

 

 

 

 

 


Share with :